সুইডেনে বিক্ষোভে কোরআন পোড়ানোয় তুরস্কের ক্ষোভ

স্বদেশ বিদেশ ডট কম

  • প্রকাশিত: ২২ জানুয়ারি ২০২৩, ৬:৩৩ অপরাহ্ণ

সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে তুর্কি দূতাবাসের সামনে উগ্র ডানপন্থী সমর্থকদের কুরআন পোড়ানো এবং কুর্দিদের পৃথক বিক্ষোভে সুইডেনের ওপর ক্ষোভ জানিয়েছে তুরস্ক।

ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের পর ইউরোপে আতঙ্ক বেড়ে যাওয়ায় সামরিক জোটে প্রবেশের জন্য সুইডেনের তুরস্কের সমর্থন প্রয়োজন। কিন্তু স্টকহোম ‘সন্ত্রাসী কুর্দিদের’ আশ্রয় দিচ্ছে অভিযোগ তুলে তুরস্ক ওই সদস্যপদপ্রাপ্তি আটকে রেখেছে।

ন্যাটো সদস্যপদ নিয়ে আপত্তি কাটিয়ে ওঠার লক্ষ্যে সুইডেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর তুরস্ক সফর বাতিল করে আঙ্কারা। এরপরই সুইডেনের উগ্র ডানপন্থী ও কুর্দিরা তুরস্কবিরোধী বিক্ষোভ শুরু করে। তুর্কিপন্থী একদল বিক্ষোভকারীও দূতাবাসের বাইরে সমাবেশ করেছে। তিনটি ঘটনারই পুলিশের অনুমতি ছিল।

কাতার ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা জানিয়েছে, কোরআন পোড়ানোর কাজটি পরিচালনা করে ড্যানিশ উগ্র ডানপন্থী রাজনৈতিক দল হার্ড লাইনের নেতা রাসমুস পালুদান। আর এই ঘটনা পুলিশের উপস্থিতিই হয়। এরআগে গত বছরের এপ্রিলে, মুসলিমদের পবিত্র রমজান মাসেও কোরআন পোড়ায় পালুদান, যা সুইডেনজুড়ে দাঙ্গার জন্ম দেয় এবং সারাবিশ্বে নিন্দার ঝড় ওঠে।

তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়, আমরা আমাদের পবিত্র গ্রন্থের উপর জঘন্য হামলার সম্ভাব্য সবচেয়ে জোরালো ভাষায় নিন্দা জানাই। মত প্রকাশের স্বাধীনতার আড়ালে এই ইসলাম বিরোধী কাজের অনুমতি দেয়া, যা মুসলমানদের লক্ষ্য করে এবং আমাদের পবিত্র মূল্যবোধের অবমাননা করে, সম্পূর্ণরূপে অগ্রহণযোগ্য।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বিক্ষোভ নিষিদ্ধ করতে সুইডিশ কর্তৃপক্ষের ব্যর্থতার জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, এটি একটি বর্ণবাদী কর্মকাণ্ড, এটি মত প্রকাশের স্বাধীনতার বিষয়ে নয়।

এদিকে সৌদি আরব, জর্ডান এবং কুয়েত সহ বেশ কয়েকটি আরব দেশও কোরআন পোড়ানোর নিন্দা জানিয়েছে।

সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, সৌদি আরব সংলাপ, সহনশীলতা এবং সহাবস্থানের মূল্যবোধ ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানায় এবং ঘৃণা ও চরমপন্থাকে প্রত্যাখ্যান করে।

অন্যদিকে প্রায় ১০০ জনের একটি ছোট দল আঙ্কারায় সুইডিশ দূতাবাসের বাইরে কোরআন পোড়ানোর প্রতিবাদে জড়ো হয়েছিল। শনিবার সন্ধ্যায় ইস্তাম্বুলেও একটি বিক্ষোভ হওয়ার কথা ছিল।

তুর্কি প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হুলুসি আকর সুইডেনের সরকারকে তার মাটিতে “ঘৃণ্য” তুর্কি-বিরোধী বিক্ষোভের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য নিন্দা করেছেন।

তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন এই বিক্ষোভকে ‘ঘৃণার সুস্পষ্ট অপরাধ’ বলে নিন্দা করেছেন। তিনি টুইট করেছেন, আমাদের সমস্ত সতর্কতা সত্ত্বেও এই পদক্ষেপের অনুমতি দেয়া ঘৃণামূলক অপরাধ এবং ইসলামফোবিয়াকে উত্সাহিত করছে। পবিত্র মূল্যবোধের উপর আক্রমণ স্বাধীনতা নয়, আধুনিক বর্বরতা।

সুইডিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী টোবিয়াস বিলস্ট্রমও এই ঘটনাকে ইসলামোফোবিক উস্কানি ও ভয়াবহ বলে অভিহিত করেছেন। বিলস্ট্রম টুইটারে বলেছেন, সুইডেনের মতপ্রকাশের সুদূরপ্রসারী স্বাধীনতা রয়েছে, তবে এর অর্থ এই নয় যে সুইডিশ সরকার বা আমি, প্রকাশ করা মতামতকে সমর্থন করি।

সূত্র: আলজাজিরা

এই সম্পর্কিত আরও খবর...