নগর নকশায় সরকারকে পবার ৯ সুপারিশ

স্বদেশ বিদেশ ডট কম

  • প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০২১, ২:২৭ পূর্বাহ্ণ

অপরিকল্পিত ভাবে রাজধানীতে গড়ে ওঠা নগর নকশায় সরকারকে ৯ দফা সুপারিশ দিয়েছে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা)। শনিবার পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা) আয়োজিত ‘মগবাজারে বিস্ফোরণ, নগর নকশা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক আলোচনার সভায় সংগঠনটি এ সুপারিশগুলো তুলে ধরে।

সুপারিশগুলো হলো :

সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুর্ঘটনার দায়িত্ব নিতে হবে, মালিকরা ভবনটি কতটা নিরাপদ আছে, নির্দিষ্ট সময় পর পর পরীক্ষা করাবেন এবং সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবেন। বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড, ইমারত নির্মান বিধিমালা ২০০৮ এবং অগ্নি প্রতিরোধ ও নির্বাপণ আইন ২০০৩ ইত্যাদি আইনগুলোর মধ্যে ‘বহুতল ভবনের’ সংজ্ঞার ভিন্নতা দূর করা অত্যন্ত জরুরি, ইমারত নির্মান বিধিমালা ২০০৮ আইনের মধ্যে ভবন নকশা ও নির্মান সামঞ্জস্যতা বিধানের জন্য ‘অকুপেন্সি সার্টিফিকেট’ দেয়ার বিধান পূর্ণ বাস্তবায়ন হলে যে কোন ভবনের ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যাবে।

এছাড়া রাজউকসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রণকারী ও সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ নিয়মিতভাবে (প্রয়োজনে ২-৫ বছর) পরিদর্শন করবেন ও প্রয়োজনীয় সুপারিশ করবেন, ফায়ার ব্রিগেডের সার্টিফিকেট নির্দিষ্ট সময় পর পর ভবন পরিদর্শন পূর্বক নবায়নের ব্যবস্থা থাকতে হবে, ভবন নির্মানের সাথে নিয়োজিত কারিগরি ব্যক্তিবর্গের দায়-দায়িত্ব ‘ইমারত নির্মান বিধিমালা ২০০৮’ নির্দিষ্ট করা আছে, সেই অনুযায়ী কারিগরি ব্যক্তিদের বিল্ডিং এর দুর্ঘটনার জন্য দায় নিতে হবে, নগরের মাস্টার প্ল্যান, ডিটেইল্ড এরিয়া প্ল্যানে নির্দেশিত ভূমি ব্যবহারকে নিশ্চিত করতে হবে এবং সরকারের বিভিন্ন সহায়তা বিশেষ করে প্লট ও ফ্ল্যাটের সহায়তা শুধুমাত্র নিম্ন আয়ের মানুষদের প্রদান করবে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. এম শামসুল হক বলেন, নন-টেকনিক্যাল লোকজন নয় টেকনিক্যাল লোকজনকে আরবান ডিজাইনে সম্পৃক্ত করতে হবে। নগর গঠন কাঠামো লোক দেখানোতে আবদ্ধ না হয়ে, শুধুমাত্র দর্শনীয় কাঠামো গড়ে না তুলে নিরাপদ, স্থিতিশীল কাঠামো গড়ে তুলতে হবে।

বার চেয়ারম্যান আবু নাসের খানের সভাপতিত্বে সভায় প্রাইম এশিয়া ইউনিভার্সিটির ডিপার্টমেন্ট অব আর্কিটেকচারের চেয়ারম্যান স্থপতি সাজ্জাদুর রশীদ, স্থপতি ও নগর নকশাবিদ মোহাম্মদ জাকারিয়া ইবনে রাজ্জাক (ড়াসেল), স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের উপাচার্য ও স্থপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী নকী, নগর পরিকল্পনাবিদ ও বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব প্ল্যানার্সের (বিআইপি) সভাপতি অধ্যাপক ড. আকতার মাহমুদ, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. এম শামসুল হক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই সম্পর্কিত আরও খবর...