পুলিৎজার-জয়ী ফটো সাংবাদিক দানিশ আফগানিস্তানে নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

  • প্রকাশিত: ১৬ জুলাই ২০২১, ৩:৪৭ অপরাহ্ণ


আফগানিস্তানের স্পিন বলডাক জেলায় সরকারি বাহিনী ও তালিবানদের সংঘর্ষ চলাকালে নিহত হয়েছেন সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের ফটো সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকী। খবরটি জানিয়েছেন ভারতে নিযুক্ত আফগানিস্তানের রাষ্ট্রদূত ফরিদ মামুন্দজাই।

শুক্রবার একটি টুইট বার্তায় তিনি বলেন, “গত রাতে কান্দাহারে আমার বন্ধু দানিশ সিদ্দিকীর মৃত্যুর খবরে আমি শোকাহত। আফগান বাহিনীর ঘেরাটোপে ছিলেন ভারতীয় সাংবাদিক ও পুলিৎজার পুরস্কার-জয়ী। কাবুলে যাওয়ার দুই সপ্তাহ আগে ওনার সঙ্গে দেখা করেছিলাম আমি। তার পরিবার এবং রয়টার্সের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।”

সূত্রের বরাত দিয়ে আফগানিস্তানের টোলো নিউজ জানিয়েছে, স্পিন বলডাকে সংঘর্ষ চলাকালে নিহত হয়েছেন দানিশ।

টুইটারে এক সাংবাদিকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার রাতেই গুরুতর জখম হয়েছিলেন দানিশ। তিনি আফগান সেনা শিবিরেই ছিলেন। তাকে আহত অবস্থায় শিবিরে রেখেই আফগান সেনারা তালিবান বিরোধী অভিযানে গিয়েছিল। কিন্তু শুক্রবার সকালে ফের তালিবানের হামলার মুখে পড়ে আফগান সেনারা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দানিশের।

ওই সাংবাদিক জানিয়েছেন, দানিশের দেহাবশেষের ছবিও এসেছে তাদের কাছে। কিন্তু তারা তা প্রকাশ করছেন না।

বুধবার এ এলাকায় পাকিস্তান সীমান্ত বরাবর একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্রসিং দখল করে নেয় তালিবানরা। এর অন্য প্রান্তে রয়েছে পাকিস্তানের চামান। পর দিন আফগান বাহিনীর তরফে জানানো হয়, স্পিন বলডাক এলাকা পুনর্দখল করা হয়েছে। যদিও সেই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে তালিবানেরা।

সম্প্রতি আফগানিস্তানে গিয়েছিলেন দানিশ। সেখান থেকে নিয়মিত ছবি ও খবর পাঠাচ্ছিলেন। এক পুলিশ অফিসারকে উদ্ধারের জন্য আফগান স্পেশাল ফোর্সের একটি অভিযান নিয়ে খবর করেছিলেন। দানিশের রিপোর্টে একাধিক ছবি ছিল। তার তোলা ছবিতে দেখা গিয়েছিল, কীভাবে আফগানি বাহিনীর গাড়ি লক্ষ্য হামলা চালাচ্ছে তালিবানরা।

নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। তাতে জানিয়েছিলেন, আফগান স্পেশাল ফোর্সের যে গাড়িতে করে যাচ্ছিলেন তিনি, তাতে রকেট হামলা চালানো হয়। রকেট হামলার দৃশ্যও তার ভিডিওতে ধরা পড়েছিল।

দানিশের বাড়ি ভারতে মুম্বাইয়ে, বয়স হয়েছিল ৪০ বছর। জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার ছাত্র ছিলেন তিনি। টেলিভিশন সাংবাদিক হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করলেও পরে ফটো সাংবাদিকতাকেই পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন। ২০১০ সালে রয়টার্সে শিক্ষানবিশ ফটো সাংবাদিক হিসেবে যোগ দেন। এর ছয় বছরের মধ্যেই ইরাকের মসুলের যুদ্ধের ছবি তুলতে যান দানিশ। ২০১৫ সালে নেপালের ভূমিকম্পের ছবিও তোলেন। ২০১৯-২০ সালে হংকং বিক্ষোভ, ২০২০ সালের দিল্লির দাঙ্গার ছবিও তোলেন তিনি।

দানিশই ভারতের প্রথম পুলিৎজার-জয়ী ফটো সাংবাদিক। মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের ছবি তুলে সহকর্মী আদনান আবিদির সঙ্গে ফিচার ফটোগ্রাফিতে ২০১৮ সালে পুলিৎজার পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। ভারতের রয়টার্সের আলোকচিত্রীদের দলটির প্রধান ছিলেন দানিশ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই সম্পর্কিত আরও খবর...