নতুন ৪টি উইকেট বানানো হবে মিরপুরে

স্বদেশ বিদেশ ডট কম

  • প্রকাশিত: ৯ মে ২০২২, ৬:০৬ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে আপাতত তেমন ব্যস্ততা নেই। নতুন মৌসুম শুরুর আগে দেশের বিভিন্ন মাঠের কিভাবে উন্নয়ন করা যায় তার পরিকল্পনা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পিচ নিয়ে প্রায়ই প্রশ্ন উঠে। এবার মিরপুরে নতুন চারটি উইকেট হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান মাহবুব আনাম।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও ঘরোয়া ক্রিকেটের জন্য চাপে থাকে মিরপুরের উইকেটগুলো। সেই চাপ কমাতে নতুন করে আরো চারটি উইকেট বানাতে যাচ্ছে বিসিবি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ শেষ হলেই শুরু হবে নতুন পরিকল্পনার কাজগুলো।

মিরপুরের পাশাপাশি খুলনা, রাজশাহী, বগুড়া ও চট্টগ্রামের মাঠগুলোও রয়েছে নতুনভাবে সাজানোর পরিকল্পনায়। গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘আগেই বলেছিলাম এই মৌসুমের পরে বিভিন্ন মাঠের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে হাত দেবো। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী আমরা মিরপুরে অনুশীলনের জন্য সেন্টারে চারটা বাড়তি উইকেট তৈরি করতে যাচ্ছি। এই সিরিজটা শেষ হওয়ার পরপরই কাজে হাত দেবো।’

মাহবুব আনাম আরো বলেন, ‘আপনারা জানেন, এখানে বিভিন্ন সময় জাতীয় দল ও অন্যান্য দল অনুশীলন করে থাকে। তাতে আমাদের যে সেন্টারে ৮টি উইকেট আছে সেগুলোর ওপর অনেক চাপ পড়ে। তাই লোকাল খেলায় আমরা ভালো উইকেট দিতে পারি না। আরেকটা জিনিস জানিয়ে রাখি, রাতের আলোয় অনুশীলনের জন্য ঢাকা ও চট্টগ্রামের আউটডোর প্র্যাকটিস উইকেটটা আছে সেগুলো আমরা লাইটের নিচে আনতে যাচ্ছি। তাতে করে ভবিষ্যতে আর আলোর নিচে অনুশীলন করতে সেন্টার উইকেট দরকার হবে না।’

মিরপুরের বাজে উইকেটের দায় নিজেদের বলে জানিয়েছেন গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান। তিনি বলেন মিরপুরে ৬০ দিনের বেশি খেলা হওয়া উচিত নয়। যদিও ১২০ দিনের বেশি খেলা হয় মিরপুরে। এই অবস্থা থেকে দ্রুতই সরে আস্তে পারবে বিসিবি বলে জানিয়েছেন তিনি।

আসন্ন শ্রীলঙ্কা সিরিজের পর বিসিবি তাদের পরিকল্পনানুযায়ী মাঠ সংস্কারের কাজে নামবে। নতুন উইকেট তৈরির ফলে ঘরোয়া ক্রিকেটে মান পরিবর্তন হতে পারে বলে আশাবাদী ক্রিকেট প্রেমীরা। কেননা দীর্ঘদিন ধরে সমালোচিত ছিল মিরপুরের উইকেট।

এই সম্পর্কিত আরও খবর...